USING GOOGLE ANALYTICS WITH YOUR STORE

Share This Post

Share on facebook
Share on linkedin
Share on twitter
Share on email

ইউজিং গুগল অ্যানালিটিক্স উইথ ইওর স্টোর

আমি কিভাবে গুগল অ্যানালিটিক্স সেট আপ করব?

আমরা আপনাকে আপনার ওয়েবসাইটে গুগল অ্যানালিটিক্স ট্র্যাকিং সেট আপ করার জন্য মোস্ট ফ্লেক্সিবিলিটি প্রোভাইড করতে গুগল ট্যাগ ম্যানেজার ইন্ট্রিগ্রেটেড করেছি ।

আমরা আমাদের পার্টনারদের জন্যে গিয়ারলঞ্চ স্টোরে গুগল ট্যাগ ম্যানেজার সেটিং করতে ইস্টেপ বাই স্টেপ গাইড লাইন তৈরি করে দিয়েছি, 

প্রথমে গুগল ট্যাগ ম্যানেজার কোড সেট আপ করতে ট্যাগম্যানেজার ডট গুগল ডট কম এ যান। সেই কোডটি কপি করুন এবং আপনার স্টোর সেটিংস এ যান। “গুগল ট্যাগ ম্যানেজার” এর আন্ডারে এই কোডটি পেস্ট করুন । আপনি যখন রেডি হচ্ছেন তখন আপনার জিটিএম অ্যাকাউন্ট কখনোই পাবলিশ করতে ভুলবেন না অথবা এটি আপনার ক্যাম্পেইন এবং স্টোরফ্রন্টে ইরোর ক্রিয়েট করতে পারে।

গুগল ট্যাগ ম্যানেজার: এন ইজি স্টেপ বাই স্টেপ গাইড

গুগল ট্যাগ ম্যানেজার কী?

আপনি যদি আপনার বিজনেস নিয়ে পরবর্তী স্টেপে নিয়ে যেতে রেডি হয়ে যান তবে আপনার গুগল ট্যাগ ম্যানেজার অবশ্যই প্রয়োজন। গুগলের ট্যাগ ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (টিএমএস) আপনাকে দ্রুত মেজারমেন্ট কোড করতে সাহায্য করে এবং কোড গুলোকে আপনার ওয়েবসাইটের ট্যাগ হিসাবে দেখায়। এই মার্কেটিং ট্যাগ গুলে ব্যবহার করা খুবই  সহজ কারণ সবগুলো কোড একত্রে থাকে এবং আপনার কোন আলাদাভাবে ডেভেলপার এর দরকার হয় না ! কিছু টাইপের ট্যাগ আছে যেগুলোতে গুগল অ্যানালিটিক্স ট্র্যাকিং কোড এড করা থাকতে পারে এবং এরমধ্যে ইভেন্ট কোড, রিমার্কেটিং কোড , ফেসবুক এবং এডওয়ার্ডস স্ক্রিপ্ট সহ কিছু নাম।

আপনার যখন কিছু প্রাইমারি টেকনিক্যাল নলেজ প্রয়োজন,অনলাইনে প্রচুর রিসোর্স আছে এবং আমরা আশা করি আমাদের এই গাইড আপনাকে সহজেই সেট আপ করতে অনেক বেশি সহায়তা করবে।

গুগল ট্যাগ ম্যানেজার কি আমার গুগল অ্যানালিটিক্স কে রিপ্লেস করে?

না, এটা হবে না। গুগল ট্যাগ ম্যানেজার আসলে আরও অনেক বেটার, আরও স্পেসিফিক ডাটা গুগল অ্যানালিটিক্স (জিএ) সাথে সংযোগ করে একসাথে কাজ করে। ফর বেস্ট রেজাল্ট ,আপনার উভয়টিই ইউজ করা উচিৎ। অ্যানালিটিক্স কনভার্সেশন ট্র্যাকিংয়ের পাশাপাশি অ্যাকচুয়াল রিপোর্ট এবং অ্যানালাইসিস প্রোভাইড করে।

কেন আমার গুগল ট্যাগ ম্যানেজার ব্যবহার করা উচিত?

জিটিএম ব্যবহারের বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে:

সিম্প্লিসিটি : জিটিএম “কন্টেইনার কোড” হল একটি সিঙ্গেল কোড যা আপনি আপনার ওয়েবসাইটের প্রতিটি পেজেই প্লেস করতে পারবেন। এটা লিটারেলি একটি ধারক হিসাবে কাজ করে, বেশ কয়েকটি কন্টেইনার, স্টোরিং এন্ড ডেপ্লয়ইং করে বিভিন্ন মার্কেটিং এবং অ্যানালিটিক্স ট্যাগগুলি যাতে মার্কেটাররা কয়েকটি ক্লিকের মাধ্যমে কোনও ট্যাগ তৈরি করতে এবং পরিচালনা করতে পারে।

স্পীড : জিটিএম আপনার ওয়েবসাইটের কোডের সাথে টেম্পার করার প্রয়োজনীয়তাকে এলিমিনেট করে দেয়। যা কয়েক মিনিটের মধ্যে ট্যাগগুলিকে টেস্টিং এবং পরিচালনা করতে সহায়তা করে।


কাস্টমাইজেশন: জিটিএম বিল্ট-ইন ট্যাগ এবং ফাংশনের সাথে ওয়াইড এরে হয়ে আসে যার অর্থ আপনি কাস্টমাইজ এডভান্সড ট্র্যাকিং করতে পারবেন খুব দ্রুত এবং সহজেই।

গুগল ট্যাগ ম্যানেজার কীভাবে কাজ করে?

কন্টেইনার – আপনি জিটিএম-এ প্রথম যে কাজ টি করবেন তা হলো একটি কম কন্টেইনার ক্রিয়েট করা ।আপনার সাইটের সমস্ত ট্যাগ ওখানেই জমা হবে। আপনি কন্টেইনার ক্রিয়েট করার পরে, আপনাকে আপনার সাইটে কিছু কোড ইনস্টল করে নিতে হবে। আপনি যদি ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করেন তবে আপনি এমন একটি প্লাগইন খুঁজে বের করুন যেটা সহজে ইনস্টল করা যায়। 

ট্যাগস – জাভাস্ক্রিপ্ট কোডের স্নিপেটস বা পিক্সেল ট্র্যাকিং ফেসবুকের মতো থার্ড পার্টি টুলস।

ট্রিগার – জিটিএম এ কখন বা কীভাবে কোনও ট্যাগ ফায়ার করা যায় সেই বিষয়টি ট্রিগার নোটিফাই করে


ভেরিয়েবল  – কখনও কখনও জিটিএম এর এক্সট্রা ইনফরমেশন প্রয়োজন হয় তাই আপনার ট্যাগ এবং ট্রিগার এই কাজটি করে থাকে। এগুলোকে ভেরিয়েবল বলা হয়।

গুগল ট্যাগ ম্যানেজার ইন্সটলিং

জিটিএম ইনস্টল করতে নিচের স্টেপ গুলো ফলো করুন :

স্টেপ ১: জিটিএম ওয়েবসাইটে যান এবং আপনার গুগল ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগ ইন করুন।

স্টেপ ২: আপনি যদি  জিটিএম-এ নতুন হয়ে থাকেন তাহলে আপনাকে অটোমেটিক একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করার রিকুয়েস্ট করা হবে।

নোট: আপনি একটি সিঙ্গেল গুগল অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে একাধিক জিটিএম অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবেন, তবে বেশিরভাগ বিজনেসই একটি দিয়েই কন্টিনিউ করার প্রবণতা বেশি।

স্টেপ ৩: আপনার জিটিএম অ্যাকাউন্টের নাম (your company’s name) লিখুন, “শেয়ার ডাটা অ্যানোনিমাসলি উইথ গুগল এন্ড আদার্স ” (if you’d like to enable benchmarking) এবং তারপরে “কন্টিনিউ ” ক্লিক করুন।

স্টেপ ৪: আপনার কন্টেইনার নাম (your website’s name) লিখুন, তারপরে আপনি নিজের কন্টেইনারটি কোথায় ব্যবহার করবেন তা সিলেক্ট করুন (I’ve chosen to use mine on a website) এবং “ক্রিয়েট ” এ ক্লিক করুন।

স্টেপ ৫: এক্সেপ্ট দ্যা টার্মস অফ সার্ভিস । কংগ্রেটস – আপনি একটি নতুন জিটিএম অ্যাকাউন্ট এবং কন্টেইনার তৈরি করেছেন ! এটি আপনাকে পেজের নিচের জিডিপিআর দ্বারা প্রয়োজনীয় ডেটা প্রসেসিং টার্মস রিসিভ করার সুযোগ দেয়।

স্টেপ ৬: এটি আপনার জিটিএম কন্টেইনার ট্যাগ।

একটি সাধারণ সাইটে, এই স্টেপগুলোর জন্য কিছুটা প্রযুক্তিগত সহায়তা প্রয়োজন হতে পারে। আপনার ওয়েবসাইটের প্রতিটি পেজে জিটিএম কোড, কন্টেইনার ট্যাগটি কপি করুন এবং পেস্ট করুন । এবং ওপেনিং <বডি > ট্যাগে ইমিডিয়েটলি প্লেস করে দিন।

গিয়ারলঞ্চ পার্টনার

আপনার ড্যাশবোর্ড থেকে থেকে “স্টোর সেটিংস” খুলুন, তারপর “ডিফল্ট পিক্সেল” সেকশন স্ক্রল করুন যেখানে আপনি আপনার নতুন জিটিএম কন্টেইনার ট্যাগটি ইন্টার করতে পারবেন।

একবার কোডটি কপি করে পেস্ট করে দিয়ে “ওকে” ক্লিক করুন এবং তখন আপনাকে আপনার জিটিএম ড্যাশবোর্ড দেখানো হবে।

ইন্ট্রোডাকশন টু জিটিএম ট্যাগস এবং ট্রিগার

জিটিএম-এর দুটি মূল উপাদান রয়েছে: “ট্যাগস” এবং “ট্রিগার”।

ট্যাগস –  আপনি যা করতে চান সেই ট্যাগগুলো জিটিএমকে নোটিফাই করে। উদাহরণস্বরূপ, ” সেন্ড এ পেজ ভিউ টু গুগল অ্যানালিটিকস “

ট্রিগার – আপনি যখন কোনও ট্যাগ ফাইয়ার্ড চান তখন ট্রিগারগুলো জিটিএমকে নোটিফাই করে। উদাহরণস্বরূপ “এনিটাইম সামওয়ান ভিজিট এ পেজ “

তাহলে, জিটিএম প্রতিবারই আমাদের নতুন সাইট, ‘MyCompanyWebsite.com’ এ জিএ এর কাছে পেজ ভিউ রিপোর্ট করে।

স্টেপ ১ : জিটিএম ড্যাশবোর্ড এর বাম পাশের মেনু থেকে “ট্যাগ” এ ক্লিক করুন এবং তারপরে “নিউ” তে ক্লিক করুন।

স্টেপ ২ : আপনি যে “ট্যাগ টাইপের ” জন্য ট্যাগ তৈরি করতে চান তা চুজ করুন। জিএ অনেক ডিপলি ইন্টিগ্রেটেড করা প্রোডাক্ট গুলোর মধ্যে একটি সাথে জিটিএম – সিম্পলি ক্লিক টু সিলেক্ট।  আপনার কাছে “ইউনিভার্সাল অ্যানালিটিক্স” বা “গুগল অ্যানালিটিক্স: জিএ ফোর কনফিগারেশন” এবং “গুগল অ্যানালিটিক্স: জিএ ফোর ইভেন্ট” এর মধ্যে চুজ করার অপশন রয়েছে। ইউনিভার্সাল অ্যানালিটিক্স (ইউএ) নতুন গুগল অ্যানালিটিক্স অপারেটিং স্ট্যান্ডার্ড। উদাহরণস্বরূপ, আমরা “ইউনিভার্সাল অ্যানালিটিক্স” সিলেক্ট করব।

স্টেপ ৩: জিটিএম পেজ ভিউতে ট্র্যাকের ধরন হিসেবে ডিফল্ট করে থাকে তবে এটি ইভেন্টস , ট্রান্সেকশন , সোশ্যাল ,টাইমলাইন , ডেকোরেটেড লিংকস, ডেকোরেটেড ফর্ম এবং তাদের রিলেটেড প্যারামিটার গুলোর জন্য ট্র্যাকিংয়ের অফার করে। আপনার জিটিএমকে আপনার গুগল অ্যানালিটিক্স ট্র্যাকিং আইডি (একা ইউএ আইডি) ব্যবহার করে পেজ দেখে ইনফরমেশন কোথায় পাঠাতে হবে তা অবশ্যই জানাতে হবে।উদাহরণ স্বরূপ আমরা ইউজ করতে পারি “ইউএ -11111111-1” আপনার প্রকৃত ইউএ আইডি খুঁজতে যদি আপনার প্রয়োজন হয় তবে এখানে যান। আপনাকে “এনাবল ওভাররাইডিং সেটিং ইন দিস ট্যাগ” চেক বক্সে ক্লিক করতে হবে যাতে এটি আপনাকে ট্র্যাকিং আইডি অ্যাড করার অপশন দেয়।

স্টেপ ৪: এখন এটি ট্রিগার ডিফাইন করার সময় এসেছে যাতে জিটিএম জানতে পারে কখন আমাদের ট্যাগটি ফায়ার করতে হবে।

যখনই কোনও পেজ ভিজিট করে কোন ট্যাগ ফায়ার করে, তখন সিলেক্ট “অল পেজ ” ফ্রম “চুজ এ ট্রিগার ” সেকশন। দ্যান ক্লিক “সেভ”

স্টেপ ৫ : জিটিএম আপনাকে আপনার ট্যাগটির নাম দিতে রিকোয়েস্ট করবে। যেহেতু ট্যাগগুলি আলফাবেটিক্যাল ভাবে সাজানো হয়,আপনার ট্যাগগুলি গ্রুপ করে রাখা অনেক ভালো একটি প্রাকটিস যাতে আপনি খুব সহজেই খুঁজে পেতে পারেন পরবর্তীতে। গুগল অ্যানালিটিক্স ট্যাগস, উদাহরণস্বরূপ, সবগুলোকে “জিএ -” দিয়ে গ্রুপ করা যেতে পারে।

স্টেপ ৬: উই আর অলমোস্ট ডান, একবার আপনি “সেভ ” ক্লিক করলে জিটিএম আপনার ট্যাগগুলো ইমিডিয়েটলি পাবলিশড করেন। আপনি আপনার ট্যাগের ডিটেলস কনফার্ম করার পাশাপাশি লাইভ (অপর ডান কোণে অবস্থিত) অপেক্ষায় আনপাবলিশড চেঞ্জগুলোর সংখ্যাও দেখে নিতে পারেন। প্রথমে আপনাকে “সাবমিট ” বাটনে ক্লিক করতে হবে এবং তারপরে আপনি ট্যাগটি পাবলিশ করতে সক্ষম হবেন।

আপনি যখন রেডি হবেন , আপনার ট্যাগটি লাইভের জন্য পুশ “পাবলিশ ” বাটনটি ক্লিক করুন।

এভোয়েড ডুপ্লিকেটিং ডাটা

আপনি যদি আপনার গুগল অ্যানালিটিক্স কে কন্ট্রোল করতে জিটিএম ইউজ করেন (যা আমরা খুব বেশি রেকমেন্ড করি) তবে আপনার ওয়েবসাইট থেকে সবগুলো এক্সিস্টিং ডাটা গুগল অ্যানালিটিক্স ট্র্যাকিং কোড সরানোর বিষয়টি অবশ্যই নিশ্চিৎ থাকুন

ইন্ট্রোডাকশন টু জিটিএম ভেরিয়েবল

ট্যাগস , ট্রিগারস এবং অন্যান্য ভেরিয়েবলগুলো কুইকলি রিট্রাইভ করতে পারে এমন স্টোরিং ভেল্যুজ গুলোকে ভেরিয়েবল ইফিসিএ ইম্প্রুভ করতে সহায়ত করে , উদাহরণস্বরূপ, “গুগল অ্যানালিটিক্স ইউএ আইডি = ইউএ -11111111-1 ।” এখন, প্রতিবার আপনার ইউএ আইডিতে ম্যানুয়ালি লোকেটিং এবং প্লাগিং করার পরিবর্তে আপনি জাস্ট সিম্পলি এপ্রোপ্রিয়েট ভেরিয়েবল ইন্টার করুন।

আমাদের “জিএ – পেজ ভিউ ” ট্যাগটি তৈরি করতে আমরা যেই স্টেপগুলো গ্রহণ করেছিলাম, সেটা দেখুন।

অনেক গুলো গুগল অ্যানালিটিক্স এর মধ্যে অনলি ওয়ান এটি যা আপনি সেটআপ করতে চাচ্ছেন। প্রতিবার একই জটিল স্টেপ এড়ানোর জন্য, আপনি একটি “ইউএ ট্র্যাকিং আইডি” ভেরিয়েবল ক্রিয়েট করতে পারেন।

স্টেপ ১ঃ হেড ওভার টু ট্যাগ ম্যানেজার ডট গুগল ডট কম অ্যান্ড লগইন । লিস্টের লেফট সাইড মেনু থেকে ভেরিয়েবল খুঁজে বের করুন এবং সিলেক্ট করুন ।

স্টেপ ০২: পরবর্তীতে ইউজার ডিফাইনড ভেরিয়েবল সেকশান পেজটি স্ক্রল করুন এবং ক্লিক “নিউ”

স্টেপ ০৩ : আপনি যেই ভেরিয়েবল টাইপ তৈরি করতে চান তা সিলেক্ট করুন। যেহেতু সাধারণভাবে আমরা চাচ্ছি যে আমাদের ভেরিয়েবল প্রতিবার একই ভ্যালু ডিফাইন করতে পারে (আমাদের ইউএ আইডি), তাই আমরা “কনস্ট্যান্ট” সিলেক্ট করব।

স্টেপ ৪ : আপনার ভেরিয়েবল এর জন্যে একটি ভ্যালু এসাইন করুন। এই ক্ষেত্রে এটিই আপনার ইউএ আইডি। তারপরে “সেভ ” বাটন এ ক্লিক করুন।

স্টেপ ৫ : পরবর্তীতে, আপনার নতুন ভেরিয়েবলের নাম দিন এবং সেভ করে ফেলুন ।

স্টেপ ৬ : এখন আপনি আপনার নিজের প্রথম ভেরিয়েবল ক্রিয়েট করেছেন, এটি এই ভেরিয়েবলের ইনফরমেশন ইউজ করার কারণে এটি  “জিএ  – পেজ ভিউ ” ট্যাগে টেস্ট করা যাক।

“ট্যাগ” ট্যাবে ব্যাক করুন  এবং “জিএ – পেজ ভিউ ” ট্যাগটি খুলুন।

আপনি যেখানে “UA-11111111-1” আইডি বসিয়ে ছিলেন সেই ফিল্ড এর থেকে নীচে স্ক্রোল করুন এবং ডিলিট করে দিন। তারপরে, আপনি ব্যবহার করতে পারবেন এমন ভেরিয়েবলের একটি লিস্ট পাবলিশড করতে ভেরিয়েবল আইকনে ক্লিক করুন। আপনি মাত্রই তৈরি করা ভেরিয়েবল ক্লিক করুন।

স্টেপ ৭ : আপনার রিসেন্ট করা চেঞ্জগুলো সেভ করতে পুনরায় “সেভ” বাটনে ক্লিক করুন।

নোট – একবার আপনি “ভেরিয়েবল” ট্যাবে কোনো ভেরিয়েবল চেঞ্জ করে ফেললে, এই চেঞ্জটা সবগুলো ট্যাগ, ট্রিগার এবং ভেরিয়েবল ব্যবহার করে এমন অন্যান্য ভেরিয়েবল গুলিতেও রিফ্লেক্টেড হবে।

আমি কীভাবে আমার জন্য জিটিএম নিয়ে কাজ করব?

আমাদের টিপস গুলো সাধারণত আপনি কী মেজার করতে চাচ্ছেন তার একটি ধারণা দিয়ে সবসময় স্টার্ট করা হয় । জিটিএম-তে লার্নিং কার্ভ রয়েছে, কিন্তু আপনি আপনার ট্র্যাফিক ট্র্যাক করা যখন শুরু করছেন তার সাথে সাথে আপনার বেটার অপ্টিমাইজ এর জন্যে বেস্ট এফোর্টস ও আরো ভালো করতে পারেন। 

ছোট করে শুরু করুন। এখানে জিটিএম আপনার পক্ষে দুটি যে উপায়ে কাজ করতে পারে:

  • যেহেতু জিটিএম আপনাকে প্রায় কোন একটি ইভেন্টের ট্র্যাক করার ক্ষমতা দেয়, আপনি সেই ইভেন্টগুলি কাস্টম রিটার্গেটিং অডিয়েন্স হিসাবে ব্যবহার করতে পারেন। 
  • আপনি যদি একটি ওয়াইড এডভার্টাইজিং নেট কাস্ট করেন,তাহলে স্পেসিফিক কোনভার্সেশন ট্র্যাক করা কিছুটা কঠিন হতে পারে। জিটিএম এর সাহায্যে আপনি আপনার ট্যাগগুলি কনফিগার করতে পারেন এবং প্রতিটি এড প্ল্যাটফর্মের জন্য আপনি আপনার টার্গেট ট্র্যাকগুলো করতে চান তা ট্র্যাকিং করতে পারছেন কিনা তা নিশ্চিত করে।

রিমেম্বার, আপনি যদি আসলেই আপনার স্টোরের জন্য জিটিএম সেট আপ করার জন্য স্ট্রাগল করেন আমরা আছি আপনাকে হেল্প করার জন্য।

Subscribe To Our Newsletter

Get updates and learn from the best

More To Explore

60 HOLIDAY EMAIL SUBJECT LINES TO DRIVE YOUR OPEN RATES THROUGH THE ROOF

৬০টি হলিডে ইমেইল সাবজেক্ট লাইন যা আপনার ওপেন রেটসকে টপে নিয়ে যাবে আপনার কাছে পারফেক্ট হলিডে মার্কেটিং ইমেইল রয়েছে, তবে কাস্টমার কীভাবে এটি পড়তে পারেন?

Ebook

ইবুক  শিখুন কিভাবে আপনার বিজনেসকে গ্রো করতে পারবেন যখন আপনি আপনার অনলাইন মার্কেট প্লেস এ ওয়াল আর্ট সেল করবেন   গত ৫ বছরে অনলাইন আর্ট সেলস