SOCIAL MEDIA PLATFORMS TO USE IN 2018

Share This Post

Share on facebook
Share on linkedin
Share on twitter
Share on email

২০১৮ সালে ব্যবহ্রত সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলো

মানুষরা সাধারনত সোশ্যাল বিং হয়ে থাকে। যাইহোক, ওয়ার্ক এবং ফিজিক্যাল লোকেশন এর কারনে প্রায়ই আমরা যাদের কেয়ার করি তাদের সাথে দেখা করাটা ডিফিকাল্ট হয়ে পড়ে। এটি নতুন মানুষের সাথে দেখা করার পাশাপাশি নতুন ফ্রেন্ডশিপ ইস্টাব্লিশিং এর ক্ষেত্রেও হয়।

সৌভাগ্যক্রমে এই দিন এবং যুগে, ফোন, ট্যাবলেট এবং কম্পিউটারগুলির মতো স্মার্ট ডিভাইস ব্যবহার করে আমাদের নিজের বাড়ির মতন প্রাইভেসি তে থেকে কারও কাছে পৌঁছানোর এবং কথা বলার এবিলিটি আমাদের রয়েছে।

২০১৮ সালের শেষের দিকে ইস্টিমেটেড করা হয়েছে যে, আজকের দিনে আমরা এভেইলেবল আছি প্রচুর সোশ্যাল সাইট এবং অ্যাপ্লিকেশন জুড়ে যেখানে কিনা ২.৬ বিলিয়ন ইউজার আছে।

এটি ভবিষ্যতের ব্যবহারের জন্য তৈরি হওয়া কোন নতুন অ্যাপ্লিকেশন, এমনকি এমন নতুন ওয়েবসাইট গুলোর জন্য অ্যাকাউন্ট করে না যা কিনা ইউজারদের তাদের মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন এবং সাইটগুলিতে ঠেলে দেয়।

ইহা খুবই ন্যাচারাল যে মার্কেটার এবং বিজনেস ওনাররা তাদের প্রোডাক্ট এবং সার্ভিসগুলোকে মার্কেট করার অপর্চুনিটি অ্যাডভান্টেজ হিসেবে শিখে নেয়। 

এই আর্টিকেলে, আমি আপনার সাথে সর্বাধিক ব্যবহৃত অ্যাপ্লিকেশন এবং সাইটগুলি শেয়ার করতে যাচ্ছি যা কিনা এখন পর্যন্ত বেশিরভাগ বিজনেজ মালিকরা এখনও ইউজ করছেন না।

অ্যাপস

ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, স্ন্যাপচ্যাট এবং টুইটারকে বাইরে রেখে, এমন কিছু অ্যাপ্লিকেশন সন্ধান করা যাক যা তাদের বিজনেসের ক্ষেত্রে বেশিরভাগ সময় ব্যবহার করা হয় না।

কিউজোন – এটা এমন একটি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সার্ভিস যা আপনাকে ফটো শেয়ার করতে, ভিডিও দেখতে, গান শুনতে, ব্লগ লিখতে এবং এমনকি একটি ডায়েরি মেইন্টেইন করতে সুযোগ দিয়ে থাকে। এছাড়াও আপনার পেইজকে কাস্টমাইজ লুক এবং ফিল দিতে কিউজোন সুযোগ দিয়ে থাকে – ইহা আপনার কন্টেট ব্রান্ডিং এর জন্য বেস্ট। 

টাম্বলার – যদিও কোনও নতুন অ্যাপ নয়, টাম্বলার অবশ্যই একটি আন্ডাররেটেড সোশ্যাল মিডিয়া। টাম্বলার একটি ইয়াহুর মালিকানাধীন মাইক্রো-ব্লগিং প্ল্যাটফর্ম যা আপনাকে ইন্টারেস্টিং কন্টেন্ট এবং ইউজার এবং এটির বিপরীতে অনুসন্ধানকে আপনার জন্য ইজি সার্চ এন্ড ফাইন্ড করে থাকে। আপনি মাল্টিমিডিয়া কন্টেন্ট থেকে শর্ট-টার্ম ব্লগ কন্টেন্ট পর্যন্ত যে কোন কিছু পোস্ট করতে পারেন। এছাড়াও তাদের চুজ করা যেকোন ইলিমেন্টকে কাস্টমাইজ করার ফ্লেক্সিবিলিটি ইউজারদের দেয়া হয়।

তারিঙ্গা – লাতিন আমেরিকার সবচেয়ে বড় সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ হিসাবে, তারিঙ্গা অন্যান্য পপুলার সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের অনুরূপ ফিচারসের মাধ্যমে ইউজার তাদের এক্সপেরিয়েন্স এবং কন্টেন্ট শেয়ার করার সুযোগ দেয়। তারিঙ্গার মূল ড্র হল এর ইউজার বেজটি বেশিরভাগ ল্যাটিন আমেরিকানদের নিয়ে গঠিত, এরা অন্যেদের চেয়ে বেশী নিশ তৈরি করে থাকে।

সিনা উইবো – টুইটার এবং ফেসবুকের মধ্যে যেখানে এর বেশিরভাগ ফিচারস সিমিলার, সিনা উইবো মাইক্রো-ব্লগিং ক্যাপাবিলিটির ক্ষেত্রে টাম্বলারের সাথে সমান।

একটি পপুলার চায়নিজ সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম হিসাবে, আপনার বিজনেস এবং চাইনিজ কাস্টমারদের মধ্যেকার বাধা ভাঙতে এটা আপনাকে সাহায্য করবে যেখানে ফেসবুক তা করতে অক্ষম হয়েছে।

স্ন্যাপফিশ – একটি ফটো শেয়ারিং সোশ্যাল নেটওয়ার্ক আনলিমিটেড এমাউন্ট অফ স্টোরেজ  দিয়ে থাকে, স্ন্যাপফিশ ইউজারদের মধ্যে কমিউনিটির সাথে ফ্রী শেয়ার করতে ক্ষমতা দিয়ে থাকে। তাই আপনার স্পেস শেষ হয়ে যাওয়ার অথবা আরো স্টোরেজের জন্য পে করার ভয় কখনোই পেতে হবে না।

ফ্লিক্স স্টার – আপনার নিশের উপর ভিত্তি করে, ফ্লিক্স স্টার টিভি এবং মুভি স্পেস এর মধ্যে ব্র্যান্ডটিকে একটি অথরিটি হিসেবে ডেভেলপ এবং ইস্টাবলিশ করতে সহায়তা করে। আপনি ফিল্ম রিভিউ লিখতে, অন্যান্য ইউজারদের সাথে কানেকশন করতে এবং শো বা সিনেমার টাইটেল অনুসারে সার্চ এবং ইন্টারেক্ট করতে পারেন।

আপনার কারেন্ট নিশ অথবা মার্কেটের সাথে ইন্টারেস্টেড নাও হতে পারে, কিন্তু আপনি যদি ফিল্ম এর ফ্যান হয়ে থাকেন তাহলে চেক করার সাজেস্ট করবো।

বটলেটার – যদিও এটা কোন মোবাইল অ্যাপ না, বটলেটার অ্যাপ্লিকেশন আপনাকে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে ডাইরেক্ট আপনার কাস্টমারদের কাছে নিউজলেটার গুলো সেন্ড করতে সক্ষম।

কাস্টমার ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে আপনার নিউজলেটারে সাবস্ক্রাইব করতে পারবেন, ইনবক্সের মাধ্যমে আপনার ব্র্যান্ডটি তাদের তাদের কাছে ডাইরেক্টলি পৌঁছে যায়। 

সিগন্যাল – ব্যবসায় মালিকরা প্রায়ই কর্মচারী এবং ক্লাইন্টের মধ্যে সেন্সিটিভ মেসেজ অথবা ইনফরমেশন সেন্ড করে থাকে। এই ইনফরমেশন সিকিউর রাখা এমন একটি বিষয় যার একটিও কোণা কাটা যাবে না।

সিগন্যাল হচ্ছে এমন একটি ইন্সট্যান্ট মেসেজিং অ্যাপ যা আপনার কনভারসেশন কে প্রাইভেট রাখে এবং ইনফরমেশন লিক এর ক্ষেত্রে আপনাকে পার্সোনালি কোন চিন্তা করতে হবে না। ইহার এডভান্স এন্ড- টু-এন্ড এনক্রিপশন প্রটোকল ইউজ করুন, এটি তার নেটওয়ার্কের মধ্যে সমস্ত কন্টেন্ট প্রাইভেসি যুক্ত করে।

ওয়েবসাইট

রেডিট – রেডিট হলো এখন পর্যন্ত সর্বাধিক ব্যবহৃত একটি সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম, কিন্তু এখনো অনেক ব্যবসায়ী আনফ্যামিলারিটির কারনে এড়িয়ে চলছেন – কিন্তু এটা জানেন না যে ভাইরাল কন্টেন্টগুলো প্রেডিক্ট করতে হেল্প করে এগুলো।

আপনার ফেসবুক ফিডে ভাইরাল হওয়া বেশিরভাগ জিনিস গুলো প্রায় রেডিট থেকে কয়েক সপ্তাহ আগে অরিজিনেট হয়। প্ল্যাটফর্মটি কিভাবে নেভিগেট করবেন এবং কমিউনিটির মধ্যে কীভাবে একটি নাম তৈরি শুরু করবেন তা শিখতে সময় নিন। আপনি রিগ্রেট হবেন না।

ক্যাফেমম – ক্যাফেমম একটি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট এবং মা অথবা মা হতে থাকা কমিউনিটির মধ্যে যুক্ত করে। এটা একে অপরকে সাপোর্ট করার মত জায়গা এটি, এছাড়াও কিছু টপিক যেমন প্রেগনেন্সি, হেলথ, ফুড, এমনকি ফ্যাশনের মতো ইনসাইট এবং ইনফরমেশন শেয়ার করা হয়। 

ক্যাফেমম একটি এড-সাপোর্টেড প্ল্যাটফর্ম, যার অর্থ এপ্রোপ্রিয়েট নিশ যারা অপারেটিং করে তাদের জন্য এটি গোল্ড মাইন হয়ে উঠতে পারে।

মাইস্পেস – রিসেন্টলি, মাইস্পেস মিউজিক, আর্টিস্ট এবং ব্যান্ডগুলোর গ্রো বাড়ানোর উপর ফোকাস করবার জন্য পুনর্নির্মাণ করেছে। তারা ব্লগ, গ্রুপ, পার্সোনাল প্রোফাইল, ম্যাল্টিমিডিয়া শেয়ারিং, এবং একটি ইম্প্রেসিভ ২০ মিলিয়ন এক্টিভ মান্থলি ইজারদের ফিচারগুলো অফার করে থাকে।

ইউটিউব – ইহাতে বুদ্ধিমান হবার কিছু নেই, কিন্তু মেজোরিটি ব্র্যান্ডগুলো ইউটিউবের বিশাল রিচ এবং ক্রেডিবিলিটির ফুল অ্যাডভান্টেজ নেয় না।

এটি দেখানো হয়েছে যে যে ব্র্যান্ডগুলি তাদের মার্কেটের জন্য ভিডিও কন্টেন্ট তৈরি করে তাদেরকে যারা প্রভাবিত করে না তাদের চেয়ে বেশি প্রভাবশালী হিসাবে দেখা হয়। মেনশন করার মতো নয়, ভিডিও ভালো এঙ্গেজমেন্ট দিয়ে থাকে এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ইমেজ এবং রিটেন পোস্ট থেকে বেশী রিচ পায়। এনগেজিং ভিডিও কন্টেন্ট ক্রিয়েট করতে কিছু সময় নিন এবং ইউটিউব ফ্রী হোস্টিং এর সাথে আপনার অডিয়েন্সদের মাঝে এভেইলেবল করে তুলুন।

জানঙ্গা – ফেসবুক এমনকি মাইস্পেস এর আগে, জানঙ্গা ছিল সেই জায়গা যেখানে আপনার ফ্রেন্ডস অ্যান্ড ফ্যামিলির সাথে কিপ আপ করা যায়। যদিও অনেক নিউ প্ল্যাটফর্ম শোটিকে চুরি করেছে, তবুও জানঙ্গার কাছে এখনো থ্রিভিং কমিউনিটি ওয়েবব্লগস, ফটোব্লগ, এবং সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল রয়েছে।

বাজনেট – একটি সোশ্যাল মিডিয়া সাইট যেখানে আপনাকে কন্টেন্ট শেয়ার করতে দেয় আপনার পার্সোনাল ইন্টারেস্ট এর ভিত্তিতে, ইউজার রিলিভেন্ট অডিয়েন্সদের মাঝে ভিডিও এবং ফটো আপলোড করতে পারে যাতে তারা ইঞ্জয় করতে পারে। এছাড়াও আপনার জার্নাল পার্সোনালাইজ করবার অপশন অফার করে থাকে। দুইটি প্ল্যাটফর্মের মধ্যে এফোর্টলেস শেয়ারিং তৈরি করতে আপনি ফেসবুক এর সাথে ইন্টিগ্রেট করতে পারবেন।

নোটএভেল মেনশন

ফ্লিকার – ফটোশেয়ারিং অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট

টাউট – মাইক্রো-ব্লগিং এবং ১৫-সেকেন্ড ভিডিও

মিক্সি – জাপানিজ সোশ্যাল মিডিয়া নেটওয়ার্ক

লিঙ্কডিন – সোশ্যাল প্লাটফর্ম ফর বিজনেস অ্যান্ড প্রফেশনাল

কেয়ার২ – সোশ্যাল সাইট কানেক্টিং এক্টিভিস্ট টু নন-প্রফিট অর্গানাইজেশন

বেশীরভাগ কন্টেন্টগুলো আমার আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি, একটি সলিড ব্রান্ড ফাউন্ডেশন এবং ফলোয়িং বিল্ডিং করবার ইম্পরটেন্স আমি মেনশন করেছি। আমি উপরে যেগুলো লিস্ট করেছি সেগুলো আপনি যদি কারেক্টলি এবং রেগুলারলি ইউজড করলে আপনি হেল্প পেয়ে থাকবেন।

ওয়ার্ল্ডের ভিতর সকল বিগ ব্রান্ড নামগুলো তাদের ডাই-হার্ড ফ্যানদের জন্য ক্লোজ-নিট ফলোয়িং করে থাকে। একটি ওয়ান-টাইম প্রোডাক্ট কিনে এই ফ্যানগুলো তৈরি হয় নাই, বরং কন্সটান্ট এটেনশন এবং কন্টেন্ট এর কারনে শুরু হয়েছে।

ইহা তাদের ইনভলমেন্টকে আরো সলিডিফাইজ করে তুলে এবং আপনার প্রোডাক্ট ও কোম্পানীর সাথে আরো বেশী ইমোশনালি এটাচড ফিল তৈরি করে থাকে যা হাইয়ার কাস্টমার লাইফটাইম ভ্যালু প্রডিউস করে থাকে।

আপনার অডিয়েন্সদের লয়াল করতে যা এটেনশন ও ইনফরমেশন প্রয়োজন তা প্রদান করুন এবং পরবর্তীতে আপনাকে ও আপনার কোম্পানীকে তারা সেইম রিটার্ন দিয়ে থাকবে।

Subscribe To Our Newsletter

Get updates and learn from the best

More To Explore

HIRE A DESIGNER

হায়ার এ ডিজাইনার আপনি ডিজাইনার’স ব্লকের কোনও সমস্যায় ভুগছেন বা কোনও নির্দিষ্ট কাজের সাথে ওভারহোয়েলমেড  ফিল করছেন, ভুলে যাবেন না যে আপনি সারা বিশ্বজুড়ে ডিজাইনারদের

SUPERCHARGE YOUR SHOPIFY STORE

আপনার শপিফাই স্টোরটিকে সুপারচার্জ করুন গিয়ারলঞ্চ অ্যাপ্ এড করুন এবং একটি ই-কমার্স বিজনেস পরিচালনার জন্য আপনার প্রয়োজনীয় সব কিছুর অ্যাক্সেস দিন  — হাই কোয়ালিটি পিওডি