MARKETING ON A DIME: 7 WAYS TO INCREASE YOUR SITE TRAFFIC WITH A SMALL BUDGET

Share This Post

Share on facebook
Share on linkedin
Share on twitter
Share on email

মার্কেটিং অন এ ডাইম : স্মল বাজেটে আপনার সাইট ট্রাফিক ইনক্রিজ করার ৭ টি ওয়ে

কাস্টমাররা শুধুমাত্র নিউ ইয়ারের সময়েই একমাত্র রেজুলুশন করেননা – ঠিক বড় বিজনেস বা ছোট বিজনেসগুলোর জন্যেও বিষয়টি একইভাবে কাজ করে। ঠিক যেমন কনজিউমারদের মতো, অনেকগুলো বিজনেস হেলদিয়ার হওয়ার জন্য এবং আননেসেসারি এক্সট্রা খরচগুলো কমানোর টার্গেটও রাখে।

খরচগুলো কমানোর এবং ছাঁটাই করার এই রেজুলুশনটি প্রচলিত অনলাইন মার্কেটিং এফোর্টসকে (অর্থাৎ অ্যাড) ইনফ্লুয়েন্স করে। আপনি যদি একটু পরিশ্রমী হন তাহলে টাইটার মার্কেটিং বাজেটে কাজ করলেও আপনার গ্রোথ পিছাবেনা। এই পোস্টে, আমরা আপনাকে একটি ছোট বাজেটের মাধ্যমে আপনার সাইটের ট্র্যাফিক বাড়ানোর জন্য ৭ টি ওয়ে দেখাব।

১. খুব স্পেসিফিক নিশ টার্গেট করুন

মার্কেটিং বাজেট নির্বিশেষে একটি স্পেসিফিক নিশ এর জন্য জিরো করা অবশ্যই প্রয়োজনীয়, কিন্তু এটি স্মল বাজেটের জন্য ইনক্রিজিংলি ইম্পরট্যান্ট। আপনার ডজনখানেক নিশ সিলেক্ট করে তারা কিভাবে কাজ করে এটি টেস্ট করার মতো সামর্থ্য নেই। 

আপনি বিভিন্ন নিশ বিবেচনা করার সময় একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন হল আপনি এটিকে যথেষ্ট নেরো করেছেন কিনা। উদাহরণস্বরূপ, “হান্টিং এবং ফিশিং ” নিশ নয়। যাইহোক, ৪৫ এবং ৬৫ এর মধ্যে পুরুষ যারা ফিশিংপছন্দ করেন তারা নিশ। আপনার নিশ কনজিউমারদের একটি ক্লিয়ার পিকচার ড্র করতে হবে আপনাকে অথবা আপনি খুব দ্রুতই আপনার বাজেট হারিয়ে ফেলবেন।

২. সেইমলেসলি ফ্রি টুলস গুলো ইউজ করুন

মার্কেটিং স্পেসটি আপনার রিসার্চ এবং ডেভেলপমেন্ট এর প্রয়োজনের জন্য অসংখ্য টুলস এবং রিসোর্স দিয়ে পরিপূর্ণ। যাইহোক, তাদের প্রাইসিং ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে। আপনি ভুল স্ট্যাকটি চুজ করুন এবং আপনার ফান্ড অপারেশন এর জন্য একটি হেফ্টি টুল ইউজ না করে যত বেশি ফ্রি টুলস ইউজ করতে পারেন।

সবচেয়ে খারাপ টুলসগুলো খুঁজে বের করার পরিবর্তে, আপনার জন্য প্রয়োজনীয় স্পেসিফিক ফ্রি অপশন রিসার্চ করতে সময় নিন। রিসার্চ , ইনসাইটস এবং কনটেন্ট ক্রিয়েট করার জন্য আপনি নির্ভর করতে পারেন এমন কয়েকটি পপুলার টুলস আছে এখানে,

ক্যানভা আপনার হাতে ডিজাইনার থাকার কারণে সময়মতো আপনি রিজেনেবল এমাউন্টসহ সুন্দর কিছু প্রোডাক্ট এবং প্রোডাক্ট কনভেনিয়েন্স অফার করতে পারেন। আনফর্চুনেটলি, এই প্রসেসটির জন্য কিন্তু আপনার বেশ খরচ করতে হয়েছে। পরবর্তী সেরা জিনিসটি হলো এমন একটি টুলস যা আপনাকে টেমপ্লেট এবং ড্র্যাগ-এন্ড ড্রপ কাস্টমাইজেশন প্রোভাইড করে সহায়তা করে।

পাবলো – ক্যানভার চেয়ে আরও স্ট্রিমলাইনড প্রোডাক্ট ,পাবলো আপনাকে ক্রিয়েটিভ টেক্সট ওভারলেগুলো দিয়ে সহজেই ইমেজ ক্রিয়েট করতে সহায়তা করে। আপনার চয়েসগুলো লিমিটেড কিন্তু এটি টুলসগুলোকে ইউজ করার বিষয়ে অত্যন্ত সহজ করে তুলতে সহায়তা করে।

এসইএম রুশ প্রতিদিন ১০ টি ফ্রি সার্চ এর জন্য এসইএম রুশ আপনাকে তাদের জনপ্রিয় কনটেন্ট সার্চ, এনালাইজ এবং ট্র্যাক করার জন্য এলাউ করে কম্পিটিটরদের উপর সতর্ক থাকতে সহায়তা করে।

বাজসুমো প্রতিদিন ৫ টি ফ্রি সার্চ এর জন্য, বাজসুমো আপনাকে কোন সাবজেক্ট বা কম্পিটিটরস হিসাবে কোন টপিক সবচেয়ে ভাল করে তা এনালাইজ করতে সহায়তা করে। সোশ্যাল মিডিয়ায় কারা কনটেন্ট শেয়ার করছে তা ডিসকভার করতে আপনি আরও গভীরভাবে জানতে পারবেন।

সিমিলিয়াওয়েব আপনার কম্পিটিটরসদের সাইটগুলো থেকে ভ্যালুয়েবল ইনসাইট সার্চ করতে এবং এমন কিছু নতুন কম্পিটিটর ডিসকভার করতে যা আপনি জানেন না যা আপনার কাছে অলরেডি আছে।

আমরা এখানে কয়েকটি লিস্টেড করেছি তবে এটা জানি যে এখানে অনেকগুলো ফ্রি মার্কেটিং টুলস রয়েছে এবং আরও অনেকগুলো রয়েছে ফ্রি ট্রায়াল অফার করে। কম্পিটিটরসদের এনালাইজ করতে, ক্র্যাফট কনটেন্ট তৈরি করতে এবং নতুন অপুর্চুনিটিজগুলো আইডেন্টিফাই করতে এই সাইটগুলো বেশিরভাগই কাজ করে থাকে।


টিপস – একটি ফ্রি টুলস ইউজ করার আগে আপনার ঠিক কী করা প্রয়োজন তা জেনে নিন যাতে করে আপনার কোনও ফ্রি ডেইলি লিমিটেশন ওয়েস্ট না হয়।

৩. বেটার কনটেন্ট ক্রিয়েট করুন

পেইড এক্যুইজেশন এর উপর স্পেন্ড করার মতো বাজেট ছাড়াই, অর্গানিক ট্র্যাফিকের জন্য আপনাকে ভাল ওলে সার্চ ইঞ্জিনগুলোর উপর নির্ভর করতে হবে। সার্চ রেজাল্টের মধ্যে হাই র‌্যাঙ্কিংয়ের একটি কারণ হ’ল অন্যরা আপনার কনটেন্ট এর সাথে প্রায়ই লিঙ্ক করে থাকে (যেমন ব্যাকলিঙ্কগুলো) -বৈধ সাইটগুলো যত বেশি আপনার সাথে লিংক করবে ততবেশি আপনি হাইয়ার রেঙ্ক পাবেন। 

কিছু বিজনেস ইজি রুট বেছে নেয় এবং ব্যাকলিংকগুলো কিনে ফেলে, তবে এটি কনসিকোয়েন্স সহ আসে। কয়েকশো ডলার খরচ এটি করতে হয় এবং যদি আপনি ধরা পড়েন এটি আসলে আপনার ক্ষতি করতে পারে। পরিবর্তে, বৈধ রুটটি নিয়ে পথচলা শুরু করেন এবং মানুষ আসলে পড়তে চান এমন কনটেন্ট ক্রিয়েট করুন। 

ব্যাকলিঙ্কগুলো পাওয়ার সম্ভাবনা বাড়ানোর জন্য এখানে আপনার কন্টেন্টে এড করতে পারেন এমন তিনটি উপাদান দেয়া হয়েছে :

অরিজিনাল ইনফরমেশন – নতুন বা অরিজিনাল ইনফরমেশন এর জন্য প্রাইমারি সোর্স হলো, যে কেউ যদি এটি ইউজ করে তাহলে হয়তো রেফারেন্সের জন্য আপনার সাইটে লিঙ্ক করবে।

রিডেবিলিটি -আপনি যদি নতুন ইনফরমেশন প্রোভাইড করতে না পারেন তাহলে আপনি অলরেডি আছে এমন ইনফরমেশন গুলো নতুন করে সাজাতে পারেন। প্রচুর ডেটা এবং ইনসাইটগুলো প্রায় দুর্বলভাবে প্রেজেন্ট হয় এবং আরও ভাল চিন্তা ও প্রেজেন্টেশন এর মাধ্যমে নতুনভাবে সাজাতে  আপনি এটি ব্যবহার করতে পারেন।

ইন্টারভিউ – এটিকে আসল ইনফরমেশন হিসাবেও বিবেচনা করা যেতে পারে তবে আপনার নিশ বেসড প্রমিনেন্ট ইনফ্লুয়েন্সারদের ইন্টারভিউ দেওয়া রিডারদের আপনার সাইটে আকৃষ্ট করার একটি গ্রেট ওয়ে।

৪. রিসাইকেল ইওর কনটেন্ট

কনটেন্ট ক্রিয়েট করা বেশ সময় সাপেক্ষ কাজ। অরিজিনাল কাজগুলো রিসার্চ করতে বেশ কয়েক ঘন্টা সময় লাগে এবং তারপরে আপনাকে আসলে রিলেভেন্ট গ্রাফিকগুলো লিখতে এবং ক্রিয়েট করতে হয়। শুধুমাত্র একবারেই এই সবগুলো কাজ পাবলিশড করা বেশ ওয়েস্ট হবে।

আপনার কনটেন্ট এর মান মাক্সিমাইজ করতে, নতুন রিডার দের কাছে পৌঁছানোর জন্য লিংকডইন, কোৱা ইত্যাদির মতো বিভিন্ন চ্যানেলে এর মতো মিডিয়ামগুলোতে পুনরায় ইউজ করতে পারেন। সম্পূর্ণ কপিটি অন্য কোনও স্পেসিফিক প্ল্যাটফর্মে স্ট্যাক করার চেষ্টা না করাই ভালো – আপনার প্রতিটি চ্যানেলের অডিয়েন্সদের আন্তরিকভাবে বিবেচনা করা উচিত।

উদাহরণস্বরূপ, কোরা রিডাররা পুরো ব্লগ পোস্টের পরিবর্তে তাদের প্রশ্নের উত্তর চান। সংক্ষিপ্তভাবে তাদের উত্তর দিন তারপরে একটি লিঙ্ক যুক্ত করুন যাতে তারা যদি আরও কিছু দেখতে চান সেক্ষেত্রে যাতে আপনার কনটেন্ট রেফার করে।

৫. একটি ফেসবুক গ্রুপ ক্রিয়েট করার মাধ্যমে আপনার ফ্যানবেস গ্রও করুন

এট দ্যা টাইমিং অফ রাইটিং, ফেসবুকের প্রায় ২ বিলিয়নেরও বেশি মান্থলি একটিভ ইউজার আছে যারা শত শত মিলিয়ন ফেসবুক গ্রুপগুলোতে একটিভলি অংশগ্রহণ করে।

ফেসবুক পেজগুলো তাদের ফ্যানবেস বাড়ানোর জন্য মার্কেটারদের এগিয়ে যেতে ইউজ হয়। এই বিষয়টি যখন পপুলার, ফেসবুকের আপডেট হওয়ার পর তার নতুন অ্যালগরিদমের কারণে অর্গানিক রিচ কমে যাওয়ায় কমিউনিটি এনগেজ বিল্ড করার জন্য অনেকগুলো গ্রুপ ক্রিয়েট হয়েছে। স্মল বাজেটের মার্কেটারদের জন্য এটি বেশ বড় একটি সুসংবাদ।

লয়্যাল এবং এনগেজড ফ্যানবেস ক্রিয়েট করতে অনেক সময় এবং এফোর্ট লাগে। কন্সিস্টেন্টলি আপনার ব্র্যান্ডকে পুশ করার পরিবর্তে, আপনার গ্রুপের সদস্যদের আরও ভালভাবে বোঝা আপনার জন্য বেশি মূল্যবান। তারা কোন বিষয়ে কথা বলতে পছন্দ করে? তাদের কী জানা দরকার? তারা কি পড়তে বেশি উপভোগ করেন? কমিউনিটি এনগেজ বিল্ড করার জন্য আপনাকে কম্পেলিং কনটেন্ট এবং টকিং পয়েন্ট প্রোভাইড করতে হবে।

৬. গেস্ট ব্লগিং এ উৎসাহিত করুন

এভারগ্রীন কনটেন্ট ক্রিয়েট করার জন্য ব্লগিং হল একটি গ্রেট ওয়ে- সার্চ এর মাধ্যমে একটি স্ট্রিম অফ ভিজিটর্স ক্রিয়েট করার জন্য সবচেয়ে উপলভ্য সাবজেক্ট হলো কনটেন্ট। গেস্ট ট্রাফিক জেনারেট করতে গেস্ট ব্লগিং ইউজের দুটি উপায় রয়েছে : গেস্ট ব্লগার বা হোস্ট ব্লগ হিসাবে।

গেস্ট ব্লগিং

গেস্ট ব্লগার হিসাবে, আপনি নতুন অডিয়েন্সদের মাঝে ডিস্ট্রিবিউশন করার সুযোগ অর্জন করেছেন। হোস্ট ব্লগের অডিয়েন্সরা আপনাকে আরও ব্র্যান্ডের কাছে রিচ করার সুযোগ দেয় এক্সট্রা মার্কেটিং স্পেন্ড ছাড়াই। 

গেস্ট ব্লগারদের গ্রহণযোগ্য ব্লগগুলো খোঁজার একটি ভাল ওয়ে হলো সার্চের মাধ্যমে।

নিম্নলিখিত বিষয়গুলো চেষ্টা করে দেখুন :

  • “নিশ কিওয়ার্ড + গেস্ট ব্লগিং”
  • “নিশ কিওয়ার্ড + গেস্ট লেখক”
  • “নিশ কিওয়ার্ড + আমাদের জন্য লিখুন “

গেস্ট ব্লগারদের হোস্ট করুন

কোয়ালিটি সম্পন্ন ফ্রিল্যান্স রাইটারদের হায়ার নেওয়ার মানে আপনাকে খরচ করতে হবে ,সেক্ষেত্রে গেস্ট ব্লগারদের হোস্টিং বেশিরভাগই বিনামূল্যে। তবে, বেশিরভাগ গেস্ট ব্লগাররা তাদের নিজস্ব সাইটগুলো ভিজিট করানোর জন্য খুঁজছেন, এই স্ট্র্যাটিজিটি আরও বেশি রিডার আছে এমন ব্লগগুলোর ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভাল কাজ করে।

৭. কানেক্ট এন্ড এনগেজ উইথ ইনফ্লুয়েন্সার

অন্য যে কোনও ইন্ডাস্ট্রির মতো, রাইট মানুষদের জানার এবং খুঁজে বের করার মাধ্যমে আপনার ব্র্যান্ডের জন্য আশ্চর্য কাজ করতে পারে। প্রচুর মার্কেটাররা এটা রিয়ালাইজ করে এবং এখন এটি এন্ডলেস ইমেইলগুলো সহ প্রতিটি রিলেভেন্ট নেম স্প্যাম করার মিশনে পরিণত করেছে। তার মানে এটি আপনার ফেভারে কাজ করবে না।

রিলেশনশিপ ডেভেলপ করার জন্য জেনুইন ইন্টারেকশন প্রয়োজন যা একে অপরের সাথে গড়ে তোলে এবং এই বিষয়গুলো গড়ে উঠতে কিছুটা সময় নেয়। একটি সাধারণ অগ্রগতি দেখতে কিছুটা এরকম দেখায়:

১. তাদের পাবলিকেশন এবং সোশ্যাল মিডিয়া সাবস্ক্রাইব করুন,

২. থটফুল কমেন্ট এবং প্রশ্নের মাধ্যমে তাদের সাথে একটিভলি এনগেজ হন।

৩. নিয়মিত তাদের কন্টেন্ট শেয়ার করুন এবং  ট্যাগ করুন তা আপনার ব্লগ বা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে যেখানে হোক ।

৪. আপনি একবারের জন্য এটি কমপ্লিট করে ফেললে ইমেইলের মাধ্যমে তাদের রিচ করুন। কোনো হ্যান্ডআউট এর জন্য আস্ক করবেননা অথবা ইমিডিয়েটলি কোনো কলাবোরেটিং ও আপনি চাচ্ছেননা। আপনি জাস্ট সিম্পলি টাচ এ থাকতে চান। 

এই রিলেশনশিপগুলো ডেভেলপ সময় নেয়। আপনি যত বেশি তাদের উৎসাহিত করতে পারবেন তত বেশি ভেলুয়েবল হয়ে উঠবেন।

Subscribe To Our Newsletter

Get updates and learn from the best

More To Explore

8 EASY TIPS FOR WORKING FROM HOME SUCCESSFULLY

সফলভাবে বাড়ি থেকে কাজ করার ৮ টি সহজ টিপস ২০২০ সালে ওয়ার্ল্ড ওয়াইড গ্লোবাল প্যানডেমিক এর কারণে রিমোট ওয়ার্কারদের পরিমাণে ইনক্রিজ হয়েছে এবং অফিসে কাজ

SEPTEMBER TRENDS REPORT

সেপ্টেম্বর  ট্রেন্ডস রিপোর্ট সেপ্টেম্বরের আসার সাথে সাথেই, ফল সিজন এর বাতাস বইতে শুরু করে। আবহাওয়া শীতল হতে শুরু করে এবং সর্বত্র লোকেরা আসন্ন ছুটির কথা