HOW TO AVOID BUYER’S REMORSE AND KEEP YOUR CUSTOMERS HAPPY

Share This Post

Share on facebook
Share on linkedin
Share on twitter
Share on email

কিভাবে কাস্টমার রিমোর্স এড়ানো যায় এবং আপনার কাস্টমারদের হ্যাপি রাখতে হয়

আনহ্যাপি কাস্টমার ই কমার্স বিজনেসের জন্য কখনোই ভাল না – তারা আপনার ব্র্যান্ডের উপর খারাপভাবে রিফ্লেক্ট করবে এবং সর্বশেষে আপনার টোটাল প্রফিট রিডিউস করবে। ওকেশন্যালি, কোন কাস্টমার আপনার প্রোডাক্টের সাথে ডিসসেটিস্ফাইড হন বা পারচেজের পরে রিমোর্স ফিল করবেন। এই আনফর্চুনেট সিচুয়েশনকে বলা হয় কগনিটিভ  ডিজোনেন্স ।কীভাবে আপনার কাস্টমারকে হ্যাপি রাখা যায় তার সিম্পল টিপসের জন্য রিডিং চালিয়ে যান।

কগনিটিভ ডিজোনেন্স কী?

আপনি কি এমন কিছু কিনেছেন যার সম্পর্কে আপনাকে সত্যিই এক্সসাইটেড করে তুলেছিল, কিন্তু আপনি কিছুদিন পরে আপনার পারচেজের জন্য রিগ্রেট শুরু করলেন? আপনি কি পিংক শার্ট টি কিনেছিলেন, যেটা আপনি বেগুনি রঙে কিনে নিতে চান? তাহলে আপনি কগনিটিভ ডিজোনেন্স এর একটি কেস এক্সপেরিয়েন্স করেছেন। ইহা মূলত কাস্টমারদের অসন্তুষ্টি, পারচেজের পরে কোনও কাস্টমারদের দ্বারা অনুভূত মেন্টাল স্ট্রেস এবং অনুশোচনা। কগনিটিভ ডিজোনেন্স একটি কমন ফেনোমেনন এবং ইহা আপনাকে নেগেটিভ ফিডব্যাকে লিড করে থাকে যা আপনার ব্রান্ডকে ডেমেজ করে থাকে ও প্রফিট ডিক্রিজ করে দেয়। ভাগ্যক্রমে, এটি সহজেই এভোয়েড যায় এবং কীভাবে আমরা তা শেয়ার করছি।

কগনিটিভ ডিজোনেন্স কীভাবে এভোয়েড করবেন

১. আন্ডার-প্রমিজ অ্যান্ড ওভার-ডেলিভার

আপনি অবশ্যই আপনার প্রোডাক্টের হাই ভ্যালু মার্কেট করতে চান অন্যথায় কেউ এটি কিনবেন না! তবে, ওভার-প্রমিজ হবেন না। শিপিং সম্পর্কে রিয়ালিস্টিক হন এবং প্রতিটি ফিচার সম্পর্কে অনেস্ট থাকুন। টি-শার্টে এমন সমস্ত আনরিয়ালিস্টিক কোয়ালিটি রাখবেন না যা এটির এডভার্টাইজে প্রকাশিত হয়েছিল তখন তারা আপসেট হবে। তারা কেবল হতাশই হবে না, তারা ফ্রাস্ট্রেটেড এবং রাগ প্রকাশ করবে। সম্ভবত কেউ খারাপ রিভিউ লিখবেন যা আপনাকে এবং আপনার প্রোডাক্ট উভয়কেই খারাপ দেখায়। ওভার-প্রমিজিং অনেকসময় আপনার পার্সোনাল রেপুটেশনকে ড্যামেজ করে দেয় যা একজন সেলার হিসাবে আপনার বিশ্বাসযোগ্যতার উপর খারাপ প্রভাব ফেলে। 

সুতরাং, আপনার প্রোডাক্টের পজিটিভ ফিচারগুলোর এডভার্টাইজ দিন, কিন্তু কাস্টমার যখন তা রিসিভ করবে সেটা ইম্প্রেস করার জন্য একটি ছোট্ট ঘর ছেড়ে যান। ইহা একটি গ্রেট পজিটিভ ফিডব্যাক – যদি চান আপনার লোকেরা এমন কথা বলবে “শার্টটি আমার এক্সপেক্টেশনের চেয়েও সফট ছিল!” বা “রঙগুলি আরও বেশি ভাইব্রেন্ট ছিল!”।

২. কনজিউমার এক্সপেক্টেশন ক্লিয়ার রাখুন

যখন টি-শার্ট সেল হবে, সিউর করুন যে ডেসক্রিপশন এবং ডিটেইলস ১০০% নির্ভুল – কোন অস্পষ্টতা নেই, কোন মিথ্যা প্রমিজ নেই, এবং না কোন এম্বেলিশমেন্ট। বায়ার কী এক্সপেক্ট করবে তা যদি জানেন, তবে তাদের বায়ার কাছে যাবার পরে তারা রিগ্রেট করার সম্ভাবনা অনেক কম রয়েছে। কোন কাস্টমার যখন তাদের মেইলে প্যাকেজ খুলবে তখন আপনি কোন সারপ্রাইজ সেখানে চান না। অবশ্যই, না থাকলে শার্টটি এক্সপেক্টেডের চেয়ে খানিকটা ভাল।

৩. কনজিউমারদের জন্য চয়েজস অফ নাম্বার লিমিট করে দিন

কগনিটিভ স্ট্রেসের মেইন ইনডিকেটর মধ্যে একটি হ’ল কাস্টমার তাদের অন্যান্য অপশনগুলো নিয়ে ভাবতে থাকেন। এমনকি যদি প্রোডাক্টি তাদের এক্সপেক্টেশন পূরণ করে বা অতিক্রম করে, বায়ার তাদের সিদ্ধান্তকে কোয়েশ্চেন করবে যদি তাদেরকে খুব বেশি অপশন দেওয়া হয়। যখন তারা তাদের কাস্টম ফরেস্ট গ্রিন টি-শার্ট পরে, তারা সম্ভবত এটি পছন্দ করবে, তবে তাদের মন এখনও কেলি গ্রিন ভার্সনে ঘুরে বেড়াতে পারে… আপনি যদি এমন একজন বায়ার চান যে কিনা রিসিভ করার সাথে সাথেই প্রেমে পরে যাবেন, কোন ডিফারেন্ট কালারের সাথে কী হতে পারে তা দেখে অবাক করে না।

গিয়ারলঞ্চ ক্যাম্পেইনের জন্য, কাস্টমারদের অপশন নাম্বার প্রোভাইড করতে আমরা প্রতি আইটেমটিতে দুই থেকে তিনটি কালারের জন্য রেকোমেন্ড দিয়ে থাকি। 

ওভারওয়েল্মিং কাস্টমারদের সাথে অনেক বেশী চয়েজেসের সাথে আপনার এন্টায়ার পারচেজ হ্যাপিনিং এ বাধা আনতে পারে। একটি মাল্টিটিউড অপশন অ্যানালাইসিস প্যারালাইজের দিকে লিড করতে পারে, যখন কোন ব্যক্তি কোনও পদক্ষেপ না নিয়েই এমন কিছু বাড়িয়ে তোলে। একজন কনজিউমার এতটাই ওভারওয়েল্মিং এবং কনফ্লিক্টেড হয়ে উঠতে পারেন যে সে কোনও কিছুর পারচেজ শেষ করে না।

৪. ক্রিয়েট ডাইভার্সিটি সেপারেট প্রোডাক্টের মধ্যে

আপনি যদি সেলার এবং ডিজাইনার হিসাবে নিজের স্টাইল ডেভেলপ করতে ইন্টারেস্টেড হন তবে আপনার প্রোডাক্ট গুলোর মধ্যে কিছু লেভেলের সিমিলারিটি থাকা প্রয়োজন। তবে, যদি দুটি বা ততোধিক প্রোডাক্ট খুব বেশি একরকম হলে, কাস্টমারকে অনেকগুলো অপশন দেওয়া হলে তারা হয়তো ডাউটের মুখোমুখি হতে পারে। তারা তাদের নতুন শার্টটি পছন্দ করতে পারে তবে অন্য একটি যদি দেখতে সিমিলার হয় তবে তারা জিজ্ঞাসা করতে পারে, “আমি কেন অন্যটি কিনলাম না”? যদি আপনার প্রতিটি প্রোডাক্ট যথেষ্ট আলাদা হয় তবে বায়ারা আরো কনফিডেন্ট হবেন যে তাদের পছন্দটি সঠিক ছিল। তারা হয়তো মাল্টিপাল প্রোডাক্ট পারচেজ ও করতে পারে!

৫. পোস্ট-পারচেজ কমিউনিকেশন

আপনার যেকোন কগনিটিভ ডিজোনেন্স সম্পর্কে সচেতন হওয়ার জন্য আপনার কাস্টমারদের সাথে চেক ইন করা দরকার। আপনাকে অবশ্যই এই কাস্টমারের ডিসসেটিস্ফেকশন সম্পর্কে জানতে হবে এবং তার উপর কাজ করতে হবে। “5 A” আপনার বায়ারদের সাথে কমিউনিকেট করার একটি ভাল উপায়। ফার্স্ট, awareness. ইরর বা ডিসসেটিস্ফেকশন হওয়ার পসিবিলিটিজ সম্পর্কে সর্বদা সচেতন থাকুন যাতে আপনি ইস্যুগুলোকে ফার্স্ট প্লেসে এভোয়েড করতে পারেন। সেকেন্ড,  acknowledge. যখন কোনও ভুল হয়ে যায় তখন ইস্যুটি চিহ্নিত করুন এবং সিউর করুন যে কনজিউমার জানেন যে তিনি বা তিনি একনোলেজ করা হচ্ছে। থার্ড, apologize. স্বীকার করুন যে এখানে একটি প্রবলেম ছিল এবং আপনি কোন মিস্টেক করেছিলেন। ফোর্থ, analyze. সিচুয়েশন আনালাইজ করুন এবং নিজের ভুল থেকে শিখুন যাতে আপনি আপনার কাস্টমার সার্ভিস উন্নত করতে পারেন। ফিফথ, additional compensation. সমস্যার ক্ষতিপূরণ দিতে আপনি যে অ্যাডিশনাল এফোর্ট কনসিডার করতে পারেন, রিফান্ডিং একটি সহজ উদাহরণ।

এই স্ট্র্যাটিজি ইউটিলাইজ এর মাধ্যমে, আপনি কাস্টমার সেটিসফেকশন অর্জন করতে পারবেন নিশ্চিতে। আপনার বায়ার যখন তাদের টি-শার্ট মেইলে এলে সারপ্রাইজড হবে না, হতাশ বা অনুশোচিত হবে না। পরিবর্তে, তারা সন্তুষ্ট এবং আত্মবিশ্বাসী হবে যে তারা সঠিক পছন্দ করেছে।

Subscribe To Our Newsletter

Get updates and learn from the best

More To Explore

SUPERCHARGE YOUR SHOPIFY STORE

আপনার শপিফাই স্টোরটিকে সুপারচার্জ করুন গিয়ারলঞ্চ অ্যাপ্ এড করুন এবং একটি ই-কমার্স বিজনেস পরিচালনার জন্য আপনার প্রয়োজনীয় সব কিছুর অ্যাক্সেস দিন  — হাই কোয়ালিটি পিওডি

Baby Onesie

বেবি ওয়ানজি বেস কস্ট     প্রোডাক্ট ইনফরমেশন      আর্ট ওয়ার্ক এন্ড মকআপ     সাইজ গাইড  বেস কস্ট Tier Monthly Unit sale Price