10 EASY STEPS TO DESIGN THE PERFECT T-SHIRT

Share This Post

Share on facebook
Share on linkedin
Share on twitter
Share on email

পারফেক্ট টি-শার্ট ডিজাইনের জন্য ১০ টি ইজি স্টেপ

পারফেক্ট টি-শার্ট ডিজাইনের সাথে গিয়ারলঞ্চে আগত প্রত্যেক সেলারের প্রোফিট সর্বাধিক গ্যারান্টেড। প্রথমে আপনার টার্গেট মার্কেট কে থিংক করে ইম্পরট্যান্ট দিতে হবে। তাদের ইন্টারেস্ট , পছন্দ ও বৈশিষ্ট্য গুলো কি কি ? আপনি নিজের টার্গেট মার্কেটের সাথে পরিচিত হয়ে গেলে আপনার ডিজাইনিং শুরু করার সময় এসেছে । আপনি নিজের সিগনেচার স্টাইল ডেভেলপ করা অলোয়েজ বেস্ট এবং সিম্পল রাখতে হবে ম্নে রাখবেন।

পারফেক্ট টি-শার্ট ডিজাইনের জন্য এই ১০ টি ইজি স্টেপ ফলো করুন

১. আপনার টার্গেট মার্কেট ডিটারমাইন করুন

ই-কমার্স বিজনেসে আপনার টার্গেট মার্কেটকে “নিশ” হিসেবে রেফার করা হয়। সবার কাছে প্রোডাক্ট সেল করা ইম্পসিবল, সো আপনার উচিত স্পেসিফিক কয়েকটি ফেভর গ্রুপ কে টার্গেট করা।

আমরা আপনাকে সাজেস্ট করছি ২-৩ বর্ডার  অডিয়েন্স সিলেক্ট করুন যারা আপনার প্রতি আগ্রহী এবং এগুলো একটা স্পেসিফিক নিশ অথবা গ্রুপে কম্বাইন করুন। ফর এক্সাম্পলঃ আপনার টার্গেট মার্কেট হলো শিকাগো রেসিডেন্ট, ওমেন এবং ডগ লাভার, তবে একটি শার্ট ক্রিয়েট করুন যা লিখা থাকবে, “ এই শিকাগো গার্ল তার কুকুরকে ভালবাসে ”। যদিও এটি সবার কাছে সেল হয় না , তবে এটি স্পেসিফিক নিশ মার্কেটে ভালো সেল হয়।

২. আপনার মার্কেট বুঝতে হবে

আপনি আপনার টার্গেট মার্কেট ডিসাইড করার পর, রিসার্চ করা ইম্পরট্যান্ট যাতে তারা বুঝতে পারে তারা কে এবং কি টাইপের ডিজাইনে বেস্ট কাজ করবে। 

আপনি ডিজাইন শুরু করার আগে নিজেকে এই প্রশ্নগুলো আস্ক করুনঃ

  • তারা কোথায় থাকে ?
  • সেখানের আবহাওয়া কেমন?
  • তারা কি করতে পছন্দ করে? 
  • তাদের প্যাশন কি?
  • কোন জিনিস তাদের খুশি রাখে?

কোন ডিজাইন ব্রেইনস্টর্মিং করার সময় অলোয়েজ আপনার নিশ থেকে ইনস্পিরেশন নিয়ে ড্র করুন। আপনার জুতা গুলো রাখুন এবং আপনি নিজের ডিজাইনের টি-শার্ট পরেছেন কি না নিজেকে আস্ক করুন । যদি আন্সার ইয়েস হয় তাহলে নেক্সট স্টেপে যান, যদি তা নাহ হয় তাহলে আপনার নিশ প্রসেসটি গভীর ভাবে বুঝার চেষ্টা করুন।

৩. রাইট ডিজাইনিং সফটওয়্যার চুজ করুন

ফাইনালি কম্পিউটারে ডিজাইন শুরু করার সময় এসেছে। পুরো নতুন সিস্টেমটি লার্ন করতে বিরক্ত হবেন না, তবে এমন একটি টুল ইউজ করুন যা আপনি অলরেডি জানেন। আপনি যদি ডিজাইনিংয়ে নতুন হয়ে থাকেন তবে এমন অনেক ফ্যান্টাসটিক ডিজাইন টুলস আছে যা আপনি ফ্রি তে ইউজ করতে পারবেন । ডিজাইন শুরু করার জন্য আমাদের রিকমেন্ডেড লিস্টটা দেখুন !

আপনি যদি ডিজাইনিংয়ে আরও এক্সপেরিয়েন্সড হন তবে আমরা সাজেস্ট করবো আপনি অ্যাডোবি ইলাস্ট্রেটর বা অ্যাডোবি ফটোশপ ব্যবহার করুন। এগুলো উভয়েই ব্যবহার করা ইজি এবং এক্সিলেন্ট রেজাল্ট দেয়।

৪. কিপ ইট সিম্পল

গ্রাফিক ডিজাইন করার সময় একটি বিষয় অলোয়েজ মনে রাখা উচিত তা হলো লেস ইজ মোর। হান্ড্রেডের চেয়ে বেশি আইডিয়া আপনার মাথায় ঘুরছে, এটি টি-শার্ট ডিজাইনে অনেকগুলো উপাদান এড করার জন্য প্ররোচিত হতে পারে। আপনি চাইছেন যে আপনার শার্টটি আকর্ষণীয় হোক, তবে আপনি আপনার কাস্টমারদের অভিভূত করতে চান না । আপনার ডিজাইনে নাম্বার অফ ওয়ার্ড, কালার ও ইমেজ লিমিট করে মেইক সিওর করুন। সিম্পল থেকে শুরু করা এটা অলোয়েজ বেস্ট এবং এটা এবং যথেষ্ট না হলে আরও যুক্ত করুন ।

৫. চুজ দ্যা রাইট টেক্সট

আপনি যখন টেক্সটি ইউজ করে ডিজাইন করছেন, ওয়ার্ড গুলো পাশাপাশি রেখে ফন্ট হিসেবে কনসিডার করা খুব ইম্পরট্যান্ট । আপনার নিশ মার্কেটে তাদের নতুন প্রিয় টি-শার্টটি কী বলতে চাইবে? যে কোন প্রেসগুলো সংক্ষিপ্ত এবং বিন্দুতে হওয়া উচিত তবে স্টেটমেন্ট দেওয়ার জন্য অনেক দীর্ঘ। আপনার যদি আইডিয়া প্রয়োজন হয় তাহলে আপনার অডিয়েন্সের সাথে ট্রেন্ডিং প্রেস রিলেভেন্ট জন্য সোশ্যাল মিডিয়াতে সার্চ করে সময় দিন। 

যখন রাইট ফন্ট টি চুজ করার অপশন আসে, তখন যতক্ষণ না এক্সপেরিয়েন্সড করেন যে কোনটি আপনার ডিজাইন তৈরির সাথে অন্যান্য উপাদানগুলো ভাল কাজ করে। সন্দেহ হলে, সহজ এবং সুস্পষ্ট কিছু নিয়ে যান।

৬. রাইট কালার স্কিম চুজ করুন

একটি ভাল কালারের স্কিম গিয়ারলঞ্চ আপনার ক্যাম্পেইনকে ইনক্রিজ করতে হেল্প করবে এবং আপনার প্রফিট বাড়িয়ে তুলবে। আপনার টার্গেট কাস্টমারকে সামনে রেখে কালার চুজে রিলেভেন্ট হওয়া উচিত । এতে কিছুটা ট্রায়াল এবং ইরোর দেখা দিতে পারে, কিন্তু আপনি যদি আমাদের বেস্ট ডিজাইন কালার গুলো প্রাক্টিস করেন আপনি সিওর থাকেন একজন উইনার খুজে পাবেন ।

আপনি সব সময় ট্রাই করবেন অ্যাডোবি প্রোগ্রামের মাল্টিপল কালার কম্বিনেশন ভিজ্যুয়ালাইজ করতে। আপনার ডিজাইনের অন্যান্য টুকরাটি তৈরি করার আগে এটি কালার করার গ্রেট ওয়ে।

৭. চুজ দ্যা রাইট ইমেজ

যদি আপনি অন্য কারও ইমেজ ব্যবহার করে থাকেন তবে কপিরাইট এবং ট্রেডমার্ক সহ আইনি বিষয় গুলো সম্পর্কে সচেতন হন। আপনার টি-শার্ট বিজনেসের ৪ টি কপিরাইট এবং ট্রেডমার্ক গাইডলাইন গুলো পড়ুন।

আপনার নিজের ডিজাইন করা ইমেজ গুলো ইউনিক স্টাইলে এক্সপ্রেস করার গ্রেট ওয়ে। টার্গেট অডিয়েন্সদের আপনার চুজ গুলো ইনফ্লুয়েন্স ও সিম্পল রাখার ট্রাই করুন এবং একটা স্টেটমেন্ট তৈরি করুন।

৮. এক্সপ্লোর ইউনিক স্টাইল

আপনি আপনার নিশের জন্য টেক্সট, কালার এবং ইমেজ বাছাই করুন এবং ম্যাক্সিমাম প্রফিট ইনসিওর করুন, ক্রিয়েটিভ কিছু করার সময় এসেছে। আপনি নিজের প্রোডাক্টের সাথে স্যাটিস্ফাইড না হওয়া পর্যন্ত বিভিন্ন শেপ, ডেপথ, টেক্সচার এবং সিমেট্রি নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করুন । 

১০ টি অলটারনেটিভ ডিজাইনের জন্য টিউটোরিয়াল দেখে অনুপ্রাণিত হয় । এই টেকনিক গুলোর জন্য অতিরিক্ত সময় এবং প্রচেষ্টা প্রয়োজন, তবে তাদের প্রোডাক্ট ভালো রেজাল্ট দেয়।

৯. কাজের এক্সপেরিমেন্ট করুন

চান্স নিতে ভয় পাবেন না, আপনার আইডিয়া গুলা লিখুন, স্কেচগুলি ড্র করুন, কালারের চাকা গুলো চারদিকে ঘুরান। ট্রায়াল এবং ইরর গুলো ক্রুশিয়াল করুন । ইনিশিয়াল ফিডব্যাক গুলো আপনার বন্ধু ও ফ্যামিলি কে দেখান । তারপরে, আপনি সোশ্যাল মিডিয়া বা ইমেলের মাধ্যমে আপনার অডিয়েন্সের সাথে নতুন আইডিয়া গুলো এক্সপেরিমেন্ট করুন এবং তাদের ফিডব্যাক একটি ডিজাইনের সাথে ইউজ করুন।

১০. অল ডিটেইল ফাইনালাইজ করুন

আপনার লাস্ট স্টেপ হলো এলিমেন্ট গুলো ভালো হওয়া এনসিওর করা । এটি ওভারথিংক করবেন না! আপনি সব সময় আরো ডিজাইনে যুক্ত করতে পারেন এবং দিক পরিবর্তন করতে পারেন তবে শেষ পর্যন্ত কাস্টমারদের কাছে বিক্রির জন্য আপনাকে প্রোডাক্ট জেনারেট করতে হবে । আপনি কনফিডেন্সের সাথে পারফেক্ট এবং পোর্টেবল ডিজাইন ক্রিয়েট করে গিয়ারলঞ্চে আপলোড করুন সেই সাথে আপনার প্রচার শুরু করুন ।

রেডি? আপনার ইকমার্স বিজনেস স্ট্যার্ট করতে এখানে সাইন আপ করুন

Subscribe To Our Newsletter

Get updates and learn from the best

More To Explore

Hot selling T-shirt by Mohammad Raihan

Hot selling T-shirt (coffee).Gift for all members. https://drive.google.com/file/d/1aajUi1bjqmPFaCQJeH5InVzNuW0cIBHp/view?usp=sharing